সোহাগ-এর ব্লগ

প্রিন্ট প্রকাশনা

আত্ম-রক্ষাত্বে শিক্ষা হরণ

লিখেছেন: সোহাগ

শুধু আকার বা রঙে নয় ১৬ কোটি বিচিত্র চেতনার মানষে আজকের বাংলাদেশী।কম দিলে বোঝে,বেশী দিলে বোঝেনা।জনে জনে চেতনার বিচিত্রতার জন্যে অপরিশোধিত নীতির বাহকরা কখনো নিজেকে ,কখনো কাউকে আমাদের কান্ডারি মনে করে।যেখানে ধর্ম ছিল মার্জিত চেতনার সফল সমাজ ব্যবস্থা , আজ তা বরবরতার আঘাতে জ্বরাজির্ণ্য।ধর্ম আর মানুষ একে অন্যের পরিপুরক।কখনো মানুষ ধর্মকে আবার কখনো ধর্ম মানুষকে আলো দিয়েছে।মহাবিশ্ব পরিচালনা ব্যতিত চলে না।তবুও বলতে হয়, আজ বাংলাদেশ এত দৃশ্য তবু দর্শন নায়।বাঙালীরা আগেও মরার জন্য পাগল ছিল আজও আছে।একদিন ভাষার জন্য দিয়েছে,একদিন গনতন্ত্রের জন্য দিয়েছে,একদিন স্বাধীনতার জন্য দিয়েছে আর আজ দিচ্ছে স্বাধীনতা বিরোধীদের বাচানর জন্য।বাঙালিরা লিখতে পড়তে শিখেছে কিন্তু এক তলা থেকে দোতলা’য় উঠতে শেখেনি।আজও বাংলাদেশ কিছু ছাত্র রাজনৈতীক আছে,কেউ লড়ে হরণ করতে কেউ লড়ে ঠেকাতে আবার কেউ কানেই শোনে না।আজ বাংলাদেশে প্রায় ৪ কোটি পরীক্ষার্থী।এদের শিক্ষাকে জিম্মি করে আজ আন্দোলন হচ্ছে।এইসব পরীক্ষার্থীর পরীক্ষা কিছু দিন পেছালেও এরা আরও কিছু শিখে নিচ্ছে।কিন্তু মনে থাকলে হয়।ব্যবসায়ী ডোনারদের টাকায় রাজনীতি করা আমাদের রাজনৈতীক নেতাদের রাজনীতিতে যোগদানের পুর্বে এদের ডি.এন.এ পরীক্ষা করে নেওয়া উচিৎ।যে এরা আসলেই বাঙালী কি? না।যাদের কাছে এই ৪ কোটি পরীক্ষার্থীর কোন মূল্য নেই তারা বাংলাদেশের জন্য কি উন্নয়ন করতে পারে?জানিনা সেদিন বঙ্গবন্ধুর সাথে বাঙালির মানষীকতা’ও খুন হয়েছিল কি ? না।দেশ বাচাতে খবর নাও।মন্যুষত্ব্য বাচিয়ে তোলো।আজ আমাদের বাবাদের ভালো বাবা হতে হবে।এজন্য বাংলার শ্রেষ্ঠ বাবা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ অনুসরণ করায় ভালো হবে।যেভাবে তিনি ৭ কোটি বাঙালির বাবা হয়েছিলেন।

 

ধন্যবাদ-

এ লেখার লিংক: http://projonmoblog.com/shohagjhe/25498.html



মন্তব্য করুন