শিবলী হাসান-এর ব্লগ

প্রিন্ট প্রকাশনা

পাকিস্তানি ক্যাম্প থেকে ভেসে আসা বীরাঙ্গনাদের আর্তনাদ: শুনতে কি পাও তোমরা??

লিখেছেন: শিবলী হাসান

জাতি হিসেবে গর্ব করার মত শুধুমাত্র একটি রক্তাক্ত দলিল না আরও অনেক কিছুই আছে আমাদের কিন্তু সেগুলো আজ ম্লান হতে বসেছে । ৭১ এ ‘পাক সার জমিন সাদ বাদ’ এর সুর এদেশীয় যেসব নরপিশাচদের কণ্ঠে শুনা গিয়েছিল তাদেরকে আমরা পরাজিত করে বিজয় ছিনিয়ে এনেছিলাম ঠিকই কিন্তু সেটিকে কি আদৌ রক্ষা করতে পেরেছি ? ৭১ এর বীর শহীদদের গর্জন আর বীরাঙ্গনাদের আর্তনাদ তো আমাদের কানের পর্দাই ভেদ করতে পারেনা । হ্যাঁ পারত , যদি জাতি হিসেবে আমাদের কপালে বেহায়ার মোহর মারা না থাকতো !

রাজনৈতিক মঞ্চে দাঁড়িয়ে মুহুর্মুহু করতালির শব্দে দম্ভ ভরে ভাষণ দেই। আর মূর্খ জনতার আগমন ও স্লোগানে মুখরিত থাকে চারদিক । ভাষণ দেই রাজনৈতিক অপসংস্কৃতি দূর করার , ভাষণ দেই দারিদ্রতা মোকাবেলার , ভাষণ দেই দেশ গড়ার , ভাষণ দেই সার্বভৌমত্ব রক্ষার ।। অথচ এখনও দেশমাতার শরীরে ৭১ এর হায়েনাদের থাবার চিহ্ন দৃশ্যমান , ঘাতকদের দাপটে এখনো আমার সামনে লজ্জায় নত আমার মা । তারপরেও মঞ্চে দাঁড়িয়ে ভাষণ দেই !! প্রতিশোধ নেই না । হায়রে , বড়ই বিচিত্র এ জাতি ।।

মাঝে মাঝে মানবাধিকার কর্মী হয়ে বসি কনফারেন্স রুমে । অধীর আগ্রহে বসে থাকে সাংবাদিকেরা কারন একটি বাক্য ছাড়ব তো লুফে নেবে বিশ্ব মিডিয়া । তাই কি আর করা কথা বলি মানবতার পক্ষে , কথা বলি জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে , কথা বলি নারী অধিকারের পক্ষেও । কিন্তু কখনো তো কথা বলিনা আমার সেই বোনটির জন্য । যাকে পাকিস্তানি ক্যাম্প থেকে নগ্ন অবস্থায় আবিষ্কৃত করেছিলাম, যার লজ্জাস্থান ঢাকতে হয়েছিল আমারই ছেঁড়া শার্ট দিয়ে । সবকিছু, সবকিছুই তো আমার মনে আছে তাহলে কেন প্রতিশোধ নিচ্ছি না ? শুধু চেয়ে চেয়ে দেখছি ।।

তাই আজ সময় এসেছে নতুন করে ভাবার , আমরা ৭১ এর মা বোনদের আত্মত্যাগ কে কি হিসেবে দেখি ? তাঁদেরকে কি বীরাঙ্গনা হিসেবে ভাবি নাকি অন্য কিছু । কেননা আমরা যদি তাঁদেরকে সেই শ্রদ্ধার জায়গাটা মন থেকে দিতাম তাহলে স্বাধীনতার ৪০ বছর অতিবাহিত হলেও কেন সেইসব কুলাঙ্গার ঘাতকদের বিচার করতে পারি নি ? বিচার কাজ যদিও শুরু হয়েছে কিন্তু ৭১ এর মানবতা বিরোধী কাজে প্রত্যক্ষভাবে লিপ্ত গু, সাকা , নিজামিদের পক্ষ নিয়ে কথা বলা জারজদের মুখ কেন আমরা বন্ধ করতে পারছি না ?
লক্ষ লক্ষ শহীদ ও বীরাঙ্গনাদের আত্মত্যাগ, হাজার হাজার কোটি টাকার সম্পদ , হিমালয় সমান কষ্ট ! এতসব যাদের জন্য হল তাদের বিচার না করা অথবা তাদেরকে প্রশ্রয় দেওয়া মানে হল একাত্তরের চেতনাকে বর্জন করে মহান ত্যাগের মুখে থু থু নিক্ষেপ করা । দুঃখজনক হলেও সত্য যে , সেই কাজটি অত্যন্ত সুন্দরভাবে আমরা সেই ৭১ থেকে আজ পর্যন্ত করেই যাচ্ছি ।

তাই আমাদের বীরাঙ্গনারা পাকিস্তানি ক্যাম্পের বন্দীদশা থেকে আজো মুক্তি লাভ করতে পারেনি, আজো কিন্তু ক্যাম্পের সেই ভয়াবহ আর্তনাদ বন্ধ হয়নি, বন্ধ হয়নি তাঁদের হৃদয় এর রক্তক্ষরণও । কারন যেসব বেজন্মাগুলো আমাদের মা বোনদের ক্যাম্পে দিয়ে পাকিস্তানিদের কাছ থেকে VAT নিত তারা এখনও যে বিচরন করছে এই মাটিতেই । শুধু তাই না , তারা অসংখ্য নব্য জারজও জন্ম দিয়েছে এই বাংলায় । তাই সেইসব ঘাতকদের ফাঁসিতে ঝুলিয়ে নব্য জারজ দের মুখেও ঠুলি পরিয়ে দিতে হবে তা না হলে যে বিশ্ববিবেক এর কাছে মাথা তুলে দাঁড়াবার কোন পথই আমাদের থাকবে না ।।

এ লেখার লিংক: http://projonmoblog.com/shiblee/514.html

 1 টি মন্তব্য

  1. NLM

    আফসোস!!!

মন্তব্য করুন