কিন্তু-এর ব্লগ

প্রিন্ট প্রকাশনা

কিছু কথা অনেক আগেই বলার ছিল

লিখেছেন: কিন্তু

প্রজন্ম চত্বর তথা গণজাগরণ মঞ্চ নিয়ে আমার কিছু কথা অনেক আগেই বলার ছিল, সেটা হয়তো ঠিক এ মুহূর্তে বলার সময় এসেছে | খুবই পরিষ্কার ভাবে বলতে গেলে বলতে হয় আমাদের ১৯৭১ সনের স্বাধীনতা যুদ্ধের পর বাংলাদেশে এটাই ছিল সর্ব বৃহৎ গণজাগরণ, যেটার আকস্মিক উৎপত্তিটা ছিল সরকারের প্রতি সন্দেহের বশবর্তী হয়ে কিছু যুবক কাদের মোল্লার সর্বোচ্চ শাস্তির দাবী নিয়ে রাস্তায় নেমে পরে |

আন্দোলন কারীদের নিজেদের কল্পনার মাঝে ছিল না যে এই অনপেক্ষিত ত্বরিত কর্মটা আমাদের বাংলার যুব সমাজকে দারুণ ভাবে নাড়া দেবে | শুরু থেকেই বাংলাদেশ ছাত্রী ইউনিয়নের একটা প্রভাব এই আন্দোলনের উপর অবশ্যই ছিল যা উপেক্ষা কার কোনই উপায় নাই| সুযোগটা কাজে লাগাতে কিছু অতি উত্সাহী তরুণ নিজেদের প্রভাব বিস্তারের এর তাগিদ অনুভব করে, সেখান থেকেই শুরু হয় বিভাজন, লক্ষ-হীন আর হীন যাত্রা | সাথে সাথেই সেই সুযোগটা লুফে নেয় বাংলাদেশের চতুর প্রকৃতির রাজনীতিবিদরা | হেজাবিরা গণজাগরণের আন্দোলনের কারণে নিজেদের অবস্থানকে দৃঢ় ভাবে দেখাতে সাহস পেয়েছিলো, এমন একটি রাজনৈতিক দল নেই যারা এই অন্দোলোন কে নিজেদের স্বার্থে ব্যবহার করার সুযোগ গ্রহণ করে নাই, এই আন্দোলনকে জামাত-বিএনপি নাস্তিকদের আন্দোলন হিসাবে আখ্যায়িত করতেও পিছপা হয় নাই | গণজাগরণের আদর্শ ও লক্ষ-হীন যাত্রা এভাবেই চলতে থাকে | দিন দিন সুবিধা ভোগ কারীরা এই আন্দোলনের সাথে সম্পৃক্ত হবার আহ্লাদ দেখাতে থাকে | আমি গণজাগরণের এমন সব স্বঘোষিত নেতাদের দেখেছি যারা আদর্শগত ভাবেই এখন থেকে ৭ কি ৮ বছর আগেও বিএনপি করতো , এখন জিয়াউর রহমানের চোদ্দ গুষ্ঠি উদ্ধার করছে, বাম দলগুলো নিজেরাই গণতন্ত্র ও গণতন্ত্রের ধ্বজা তুলে আওয়ামীলীগের কাঁধে বন্দুক তুলে রাজাকারদের বিচার চাইছে ১৯৭১ সনে এই চীন পন্থী রাজনৈতিক বাম দল গুলো যারা বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে ছিল, আজ তারাই রাজাকারদের বিচার এর দাবীতে আকাশ বাতাস মুখরিত করে রাখছে | গণতন্ত্রকে বিএনপি প্রতিষ্ঠিত করবে সেই শক্তি এখন আর তাদের নাই, বাংলাদেশে হবে একটি সমাজতান্ত্রিক গণতন্ত্রের দেশ, যে দেশের মানুষ ধর্মনিরপেক্ষতার মাধ্যমে বাঙালী জাতীয়তাবাদ বিশ্বাসী হয়ে বাংলাদেশের বসবাস করবে সে আশায় এখন গুরে বালি | আওয়ামীলীগ তো এখন চোখে রঙ্গিন চশমা পরে সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে | আওয়ামীলীগকে কোন অবস্থাতেই একটি সেকুলার দল হিসাবে মেনে নেয়া আমার পক্ষে দারুণ কষ্ট হচ্ছে, যদি তাই হতো বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ অন্ততপক্ষে ১৯৭২ সালের সংবিধানটাকে পুনরুদ্ধারের চেষ্টা করতো | অনলাইন একটিভিস্টদের সাথে আমরা যারা অফ লাইন একটিভিস্টদের সাথে সমন্বয় ঘটাতে না পারলে, মনে রাখা দরকার বাংলাদেশ একটি ছাত্র আন্দোলনের দেশ, এই দেশে ছাত্র আন্দোলনের ইতিহাস অনেক অনেক গৌরবের, ছাত্র আন্দোলন একটি আদর্শের ভেতর দিয়ে পরিচালিত হয় | ছাত্র আন্দোলন একবার রাজনৈতিক আবার অরাজনৈতিক হয় না| দেশের স্বার্থে যে কোনো আন্দোলনই রাজনৈতিক হয়, গণজাগরণ মঞ্চের আন্দোলন ক্ষণে রাজনৈতিক ক্ষণে অরাজনৈতিক | প্রজন্ম চত্বরের গণজাগরণই ছিল একটা ভরসা, নিজেদের নেতাদের মাঝে বিভাজন কমিয়ে আনতে না পারলে| এই অবিস্মরণীয় বিশাল আন্দোলন শুধুই স্মৃতির পাতায় চলে যাবে |
–কিন্তু–

এ লেখার লিংক: http://projonmoblog.com/kintu/28494.html



মন্তব্য করুন