কবির য়াহমদ-এর ব্লগ

প্রিন্ট প্রকাশনা

জাগরণের পূর্বাপর নিয়ে আমার কিছু কথা

লিখেছেন: কবির য়াহমদ

Jagoroner purpapor

তারুণ্যের অবিস্মরণীয় অবাক কাণ্ড গণজাগরণ। গণজাগরণ বাংলাদেশের ইতিহাসকে নতুন করে লিখে দেবার নতুন এক অধ্যায়। কসাই কাদের মোল্লার যাবজ্জীবন রায়ের বিরুদ্ধে তারুণ্য যে প্রতিবাদের ইতিহাস লিখেছে যুগ যুগ ধরে বাংলাদেশ তা ধারণ করবে।

তারুণ্যের গণজাগরণ ব্যর্থ হয়নি। গণদাবির মুখে সরকার আইন সংশোধন করতে বাধ্য হয়েছে। আপীল হয়েছে, আপীলের কারণে কসাই কাদের মোল্লা সমুচিত শাস্তি পেয়েছে। বাংলাদেশ কলংকমুক্তির পথে এগিয়ে গেছে ১২ ডিসেম্বর কসাই কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকরের মাধ্যমে। এই জাগরণ ব্যর্থ হলে রাজাকারের বিচারপ্রার্থি লক্ষ লক্ষ তরুণ ‘বিদ্রোহী’ হিসেবে আখ্যা পেতো। মামলা ঝুলতো তাদের ওপর। ইতিহাস তার ব্যর্থ নায়কদের মনে রাখে না; তাই তারাও স্থান পেতো সেভাবেই!

ইতিহাসের পাঠ, মানুষ ইতিহাস থেকে শিক্ষা নেয় না। ইতিহাসের এ পাঠ অধিকাংশের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হলেও কিছু কিছু ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম সন্দেহ নেই। ব্যতিক্রমী পাঠের অনন্য নজির শাহবাগে গর্জে ওঠা তারুণ্যের আন্দোলন; গণজাগরণ আন্দোলন। শহীদ জননী যে শুরু করেছিলেন চেতনার অবিনশ্বর শিখা হয়ে তা ধরে রাখছে এই প্রজন্ম এবং ধারণ করে যাবে পরবর্তী প্রজন্মগুলো অনাদিকাল! একাত্তর বাংলাদেশে প্রমাণ করেছিল এখানে থাকতে হলে দেশপ্রেমিক বাঙালি হিসেবেই থাকবে হবে। ধর্ম যার যার দেশ সবার- এই আপ্তবাক্য বুকে ধারন করে দীর্ঘ মুক্তিসংগ্রাম এবং অতপর বাংলাদেশ। অথচ একাত্তরের পরাজিত শত্রু পাকিস্তানি দল জামায়াত-শিবির একাত্তরে তাদের পরাজয়ের বদলা নিয়েছিল বিভিন্নভাবে। মুক্তিযুদ্ধের অব্যবহিত পর নিষিদ্ধ ঘোষিত এই সংগঠনটি এক সময় আবারও সিদ্ধ হয়ে যায়, পেয়ে যায় রাজনীতির সুযোগ। যা আমাদের সবচেয়ে বড় লজ্জার ইতিহাস। আমরা লজ্জিত হই যখন দেখেছিলাম রাজাকারেরা মন্ত্রি হয়ে যায়, প্রাণের পতাকা উড়িয়ে ভেদ করে যায় রাজপথের বাতাস। হায় লজ্জা! অবাঞ্ছিত এক অধ্যায়!

মুক্তিযুদ্ধের পরবর্তী সময়কার সবচেয়ে কার্যকর গণআন্দোলন ২০১৩’র গণজাগরণ। রাজাকার কাদের মোল্লার প্রহসনের রায়ের বিরুদ্ধে যেভাবে প্রতিবাদে দাঁড়িয়েছিল বাংলাদেশ সেটা ছিল এক ইতিহাস। এই গণআন্দোলন সফল হয়েছিল। শাহবাগের গর্জনে সারাদেশ জেগেছিল। আমরাও জেগেছিলাম সিলেট থেকে। এই আন্দোলনের সাথে জড়িত হয়ে বুঝতে পারি এই দেশের মানুষ দেশকে কতখানি অন্তরে ধারণ করে, কতখানি দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ মানুষ ভুলে যায় তার অবস্থানের সাংঘর্ষিকতা।

‘জাগরণের পূর্বাপর’ মানবতাবিরোধী অপরাধী রাজাকারদের অপরাধের কিছু তথ্য, গণজাগরণ মঞ্চ পরবর্তী সময়ের দেশের পরিস্থিতির আলোকপাত, রাজাকারদের বিচার, হেফাজতে ইসলাম ও জামায়াত-শিবির এবং সাম্প্রদায়িক রাজনীতি এবং অন্যান্য কিছু বিষয় নিয়েই। এক তরুণ যেভাবে দেখে সময় আর দেশ- আমিও এর বাইরের কেউ নই। যেখানে চেতনায় জাগরূক সদা বাংলাদেশের হৃদয়, সেখানে আমি এক মুগ্ধ পথিক। আমি আমার চোখেই বাংলাদেশকে দেখি; বাংলাদেশও নিশ্চয়ই আমাকে দেখছে!

বই সম্পর্কিত কিছু তথ্য:
জাগরণের পূর্বাপর- কবির য়াহমদ
প্রথম প্রকাশ: অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৪
প্রচ্ছদ: তৌহিন হাসান
অনুপ্রাণন প্রকাশন (লিটলম্যাগ চত্বর, উন্মুক্ত স্টল-২)
মূল্য: ২০০ টাকা, পৃষ্ঠা সংখ্যা: ৯৬

=> অনুপ্রাণন প্রকাশন, বি-৬৪, কনকর্ড এম্পোরিয়াম শপিং কমপ্লেক্স, কাঁটাবন, ঢাকা ১২০৫, মোবাইল- ০১৭৬৬৬৮৪৪৩৬ ইমেল- anupranantroimashik@gmail.com

Jagoroner purpapor

এ লেখার লিংক: http://projonmoblog.com/kabiraahmwd/28166.html



মন্তব্য করুন