কবীর চৌধুরী তন্ময়-এর ব্লগ

প্রিন্ট প্রকাশনা

জামায়াত ইসলাম অতঃপর শাপের ধর্ম অকৃজ্ঞতা প্রকাশ

লিখেছেন: কবীর চৌধুরী তন্ময়

জামায়াত ইসলাম মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীদল তার কোনো সন্দেহ নেই, সংশয় নেই তারা বাংলাদেশের স্বাধীনতা বিরোধী, লাল-সবুজের পতাকা বিরোধী, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী, অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র বিরোধী।

জামায়াত ইসলাম সুপরিকল্পিত ভাবে এ দেশের সুর্য্য সন্তানদের হত্যার মধ্য দিয়ে তাদের প্রভু পাকিস্তানী নীতি-আদর্শ প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে অবস্থান নিয়েছিলো।

বর্তমানেও তাদের ভূল আদর্শ উপস্থাপন করে নতুন প্রজন্মের একটা অংশকে ছাত্রশিবিরের মত একটি পথভ্রষ্ট, উগ্র, জঙ্গী রাজনৈতিক দলে অন্তর্ভূক্ত করতে আজ অনেক দূর।

সাথে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্যে আন্তর্জাতিক ভাবে ষড়যন্ত্র চালিয়ে আসছে। অবৈধ টাকার পাহাড় দিয়ে লবিষ্ট নিয়োগ করে বাংলাদেশকে একটি বিতর্কিত ব্যর্থ রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে তারা সচেষ্ট, সচেষ্ট তাদের প্রভু পাকিস্তানও।

সন্ত্রাসী, পথভ্রষ্ট, জঙ্গী অসংস্কৃতিক রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ নিজেদের যতই বুদ্ধিমান বা চালাক মনে করুক না কেনো, আসলে তারা বরাবরই বোকা এবং ভূল নীতি গ্রহণ করে থাকে।

যেমন একটি অপরাধী যতই অপরাধ করুক না কেনো, প্রমাণ রেখে যাবেই।

বাংলাদেশের রাজনৈতিক দলগুলো তাদের নিজেদের স্বার্থে অনেক ক্ষেত্রে এই জঙ্গী সংগঠন জামায়াত ইসলামকে ব্যবহার করেছে এবং এখনও করছে।

আর জামায়াত ইসলাম ও তাদের সন্ত্রাসী সংগঠন ছাত্রশিবিরও নানান ভাবে নিজেদের হীন স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য ব্যবহার হয়ে আসছে।

১৯৭১ থেকে আজ বিজ্ঞানের এই স্বর্ণ যুগে এসেও জামায়াত ইসলাম যেহেতু তাদের মূল চরিত্র পরিবর্তন করতে ব্যর্থ হয়েছে, সেহেতু তাদের ভবিষ্যত পরিকল্পনাও

অপরিবর্তনশীল। তাই জামায়াত ইসলাম ও তাদের সন্ত্রাসী বাহিনী ছাত্রশিবিরের ব্যাপারে আমাদের সবাইকে সর্তক থেকে নীতিগত সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

জামায়াত ইসলামকে নিষিদ্ধ করার মত আমাদের কাছে যথেষ্ট পরিমান প্রমাণ রয়েছে। জাতির ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে জামায়াত নিয়ে রাজনীতির খেলা বন্ধ করতে হবে।

কারণ, দুধ কলা দিয়ে যতই কাল শাপ পোষা হোক না কেন, শাপের ধর্ম অকৃজ্ঞতা প্রকাশ করবেই। মানবতাবোধ আপনার মাঝে থাকলেও জামায়াত ইসলাম ও তাদের সন্ত্রসী সংগঠন ছাত্রশিবিরের মাঝে নেই।
আমি ব্যক্তিগত ভাবে মনে করি, তড়িগড়ি করে কোনো সিদ্ধান্ত নয়। জামায়াত ইসলাম ও তাদের সন্ত্রাসী সংগঠন ছাত্রশিবির নিষিদ্ধ করার ব্যাপারে আমাদের স্বল্প মেয়াধী ও দীর্ঘ মেয়াধী দুইটি পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। আর পরিকল্পনাগুলো হতে হবে অত্যান্ত শক্তিশালী ও বাস্তবমুখী।

জামায়াত ইসলামকে ব্যবহার নয়, নয় রাজনৈতিক খেলা। আজকের ভূল, আগামীর ধ্বংস অনিবার্য। ভবিষ্যত প্রজন্মকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করা আমাদের সকলের নৈতিক দ্বায়িত্ব।

এ লেখার লিংক: http://projonmoblog.com/kabir-chowdhury-tanmoy/28041.html



মন্তব্য করুন