jannatul.ferdous-এর ব্লগ

প্রিন্ট প্রকাশনা

বিশ্বাস করি, পরিবর্তন আসবেই।

লিখেছেন: jannatul.ferdous

এক একটা ভাল উদ্যোগকে বাধা দেয়ার মানুষের অভাব হয়না। রাজাকারের ফাঁসির দাবিতে গত বছরের ফেব্রুয়ারি থেকে আজ পর্যন্ত গণজাগরণ মঞ্চ কাজ করে এসেছে। মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে, মানুষকে ভালবাসার আর রাজাকার আল বদরদের ঘৃণা করার বাণী ছড়িয়েছে এই গণজাগরণ মঞ্চ। প্রজন্ম চত্বর না হলে কাদের কসাইয়ের ফাঁসি রাজনীতির কোন এক জটিল অঙ্কের ফাঁদে হারিয়ে যেত।

 

যুগে যুগে বাঙ্গালিকে যেমন মোকাবেলা করতে হয়েছে প্রত্যক্ষ শত্রুর সাথে, তেমনি নিজেদের লোক বলে পরিচয় দেয়া কিছু বিশ্বাসঘাতকদের সাথেও। ইতিহাসের পাতায় গোলাম আজম আর খন্দকার মোশতাক উভয়ই সমান ঘৃণার বস্তু। ব্রিটিশ ইষ্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির চেয়ে মীর জাফর কোন অংশে কম ঘৃণ্য নয়। পিছন থেকে ছুরি মারা এই মানুষগুলো মানুষ নামের অযোগ্য। চিরকাল ঘৃণ্য এরা আমাদের কাছে।

 

আমরা বাংলাদেশকে ভালবাসি বলেই কোন দলের অন্ধ সমর্থন করি না। সরকার ভুল করতে পারে, সেটা ধরিয়ে দেয়া মানেই সরকার বিরোধিতা নয়। কিন্তু এই সহজ সত্যটা অনেকেই গ্রহণ করতে চায়না। খন্দকার মোশতাকদের মতই এরা নিজেদের পক্ষের শক্তি সেজে থাকে। স্বার্থের জন্য চরম ঘৃণ্য পথ অবলম্বন করতেও দ্বিধা করেনা। যার প্রমাণ গতকাল প্রজন্ম চত্বরে গণজাগরণ মঞ্চের কর্মীদের উপর ছাত্রলীগের আক্রমণ।

 

নাহ, আমি পুরো ছাত্রলীগকে কোনোভাবেই মোশতাক বলছি না। এমন অনেক ছাত্রলিগ সদস্যকে আমি চিনি যারা গণজাগরণ মঞ্চের নিয়মিত কর্মী। নির্বাচনের আগে আওয়ামী লীগ সরকারের পক্ষে প্রচারনা চালিয়েছেন সারাক্ষন। আবার সরকার যখন প্রাণের জাতীয় সঙ্গীত গাইতে ইসলামী ব্যাংকের টাকা নিচ্ছিল তখন তার প্রতিবাদও তারা করেছেন। এই মানুষ গুলোকে আমি শ্রদ্ধা করি। কিন্তু যারা গণজাগরণ মঞ্চের মত একটা সাধারন মানুষের প্ল্যাটফর্মের উপর এরকম নির্লজ্জ আক্রমন করতে পারে তাদের জন্য শুধুই ঘৃণা।

 

গণজাগরণ মঞ্চের কর্মীদের উপর ছাত্র ও যুবলীগের কতিপয় নেতা-কর্মীর ন্যাক্কারজনক হামলার প্রতিবাদে ও দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে আজ  বিকাল ৪টায় প্রজন্ম চত্বরে প্রতিবাদ সমাবেশেও হামলা চালায় পুলিশ। সাধারণ মানুষের একটা জাগরণকে, এক হওয়ার একটা প্ল্যাটফর্মকে ক্ষমতাবান বা ক্ষমতার লড়াই করা মানুষগুলো এত ভয় পায় কেন বুঝি না ! হয়ত বা, ইতিহাসের সাক্ষ্য তাদেরও ভয় দেখায়। বাংলাদেশের মানুষ কখনও অন্যায়ের সাথে আপোষ করেনি, করবেনা।

গণজাগরণ মঞ্চের কর্মীদের উপর পুলিশি হামলা ও গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা জানাই। এরকম আঘাত আগেও এসেছে শাহবাগের উপর- পাকিস্তানি হাই কমিশন ঘেরাও কর্মসূচীর সময়। তারপরেও, জাগরণের জোয়ার কি রুদ্ধ করা গেছে ? যায়নি। আমি গণজাগরণের লোক। বিশ্বাস করি, পরিবর্তন আসবেই।

 

হাত দিয়ে বল সূর্যের আলো কি রুধিতে পারে কেউ ?

আমাদের মেরে ঠেকানো যাবে না গণজোয়ারের ঢেউ।

জয় বাংলা…

এ লেখার লিংক: http://projonmoblog.com/jannatul-ferdous/29372.html



মন্তব্য করুন