Farzana Sonia-এর ব্লগ

প্রিন্ট প্রকাশনা

” রাজাকার নিপাত যাক, বাংলাদেশ মুক্তি পাক।”

লিখেছেন: Farzana Sonia

এক মা গত ৪২বছর ধরে অপেক্ষা করে আছেন তাঁর সন্তানেরা তাঁকে কলঙ্কমুক্ত করবে বলে। একদিন তাঁর সাথে যে অন্যায় করা হয়েছিল তার বদলা নেবে উত্তরসূরিরা। সন্তানেরা কি মায়ের অপমান সহ্য করতে পারে? তাই বিনিদ্র ৪২ বছরে মা শুধু দিন গুনেছেন কবে আসবে সেই মুক্তির দিন?
৩০ লক্ষ প্রাণ আজও অতৃপ্ত হয়ে শুয়ে আছেন বাংলার মাটিতে। যে দেশের বিজয় অর্জনের জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগেও পিছপা হননি, মনে ছিলনা প্রিয়জনের ছবি, ছিলনা কোন প্রাপ্তির আকাঙ্খা। শুধু ছিল স্বাধীনতাকে ছিনিয়ে আনার দৃপ্ত শপথ। সে দেশেই যখন স্বাধীনতাবিরোধীদের অবাধ বিচরণ, আস্ফালন, প্রাণের পতাকাবাহী গাড়ি চড়ে দেশ শাসকের ভূমিকায় দেখেন, তখন এরা কিভাবে শান্তিতে ঘুমাতে পারেন?
২ লক্ষ নির্যাতিত মা যখন দেখেন তাঁর সামনেই বহাল তবিয়তে আয়েশি, সম্মানের জীবন-জাপন করে সেই পিচাশরা যারা তাঁর স্বাভাবিক জীবন কেড়ে নিয়েছে, তখন তাঁর বেঁচে থাকাটাই মূল্যহীন হয়ে যায়।
চিকিৎসার অভাবে বীরযোদ্ধা যখন মৃত্যুর প্রহর গোনে, তখনই সে যদি দেখে ৪২ বছর আগের এক পাপিষ্ঠ আজীবন সাজা পাবার পরও দেশের স্বনামধন্য হাসপাতালে রাজার হালে অসুস্থতার ভান করে দিব্যি আছে, তখন তাঁর সব অর্জন, তাঁর শক্তি,সাহস হাওয়ায় মিলিয়ে যায়। ধিক্কার জানায় নিজের ভাগ্যকে। আর মনে করে রবি ঠাকুরের কথা, ” আমি শুনে হাসি, আঁখিজলে ভাসি, এই ছিল মোর ঘটে-
তুমি মহারাজ সাধু হলে আজ, আমি আজ চোর বটে।।”
একজন বাঙালি হিসেবে আমি আজ এই মাতৃভূমি বাংলা মা, ৩০ লক্ষ শহীদ, ২ লক্ষ বীরাঙ্গনা মা আর অকুতোভয় বীরযোদ্ধাদের কাছে ক্ষমা চাই। দৃপ্ত কণ্ঠে তাদের আশ্বস্ত করতে চাই তোমাদের দুঃখ আর কলঙ্ক মোচনে এই প্রজন্ম জেগেছে তারা ৭১ এর মত বিজয় ছিনিয়ে এনে তবেই ঘরে ফিরবে। তোমরা শুধু আর কিছুদিন অপেক্ষা কর সাথে প্রাণভরে আশীর্বাদ কর যেন জয়ী আমরা হই।
নূর হোসেনের ভাষায় বলি ,” রাজাকার নিপাত যাক, বাংলাদেশ মুক্তি পাক।”
জয় আমাদের হবেই।
জয় বাংলা।

এ লেখার লিংক: http://projonmoblog.com/farzana-sonia/25128.html

 2 টি মন্তব্য

  1. jannatul.ferdous

    এই রক্তচক্ষু আগলে রাখবে আগামীর বাংলাদেশ…। জয় বাংলা…।

    1. Farzana Sonia

       ধন্যবাদ আপনাকে। ছোটবেলায় পড়েছিলাম, “আমরা যদি না জাগি মা কেমনে সকাল হবে?                               তোমার ছেলে উঠলে গো মা, রাত পোহাবে তবে।”বাংলা মাকে কলঙ্ক মুক্ত করতে আমাদের সবাইকেই নিজ নিজ অবস্থান থেকে রুখে দাঁড়াতে হবে।

মন্তব্য করুন