Dewan Tanvir Ahmed-এর ব্লগ

প্রিন্ট প্রকাশনা

ফতোয়াবাজদের জারি করা ফতোয়া শুধু আমাদের জন্য, ফতোয়াবাজদের জন্য নয়…

লিখেছেন: Dewan Tanvir Ahmed

আমার স্কুল লাইফের বন্ধু আল মামুন পরম ধার্মিক(!), যাকে বলে সিরাম ধার্মিক! সে প্রায়ই বাংলাদেশের সংস্কৃতির মধ্যে অনৈসলামিক বিষয়বস্তু খুজে বেড়ায়, আর বলে,”আমি সংস্কৃতিকে সমর্থন করি কিন্তু বাংলাদেশের সংস্কৃতিতে অনেক কিছুর সংশোধন দরকার, কারণ ইসলামের দৃষ্টিতে এগুলো সম্পূর্ণ হারাম। সংস্কৃতি হতে হবে ইসলাম সম্মত।”
আমি যখন তার এসব কথা বার্তা দাঁতে দাঁত চেপে শুনি, দুই কান দিয়ে বাষ্প বের হতে থাকে তখন(আমি আবার শফি হুগুর+বেগুন জিয়া কর্তৃক সার্টিফাইড নাস্তিক কিনা!)।
একবার তাকে জিজ্ঞেস করলাম, “আচ্ছা আল মামুন, আমাকে একটু বলো তো বাংলাদেশের সংস্কৃতির কোন উপাদানটা ইসলামবিরোধী? লেট মি নৌ!”
আল মামুন: এই যেমন ধরো নৃত্য। এটা ইসলামে সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।
আমি: তাই বুঝি?
মামুন: হ্যা। এইজন্যই আমি নৃত্যকে প্রচণ্ড ঘৃণা করি।
আমি: কোন সূরায় আছে? অথবা কোন হাদিসে আছে?
মামুন: ইসলামে আছে নারীদের পর্দার মধ্যে থাকতে হবে। নাচের সময় মেয়েদের পর্দা ঠিক থাকে না।
আমি: পর্দা মানে কি বলো তো?
মামুন: যেই পোশাক দেহকে আবৃত রাখে।(ভাষার মাধূর্যে আমি মুগ্ধ!)
আমি: বাংলাদেশের সংস্কৃতি অনুযায়ী মেয়েদের প্রচলিত নাচের পোশাক কি?
মামুন: শাড়ি।
আমি: শাড়ি কি শরীরকে ঢেকে রাখে না? শাড়ি পড়লে একটা মেয়ে বেপর্দা থাকে কীভাবে?
মামুন: কিন্তু নাচ ইসলামে হারাম!
আমি: আমি তো সেটাই জানতে চাচ্ছি, হারাম কেন?
মামুন: [নিরুত্তর]
আমি: আল মামুন, এইবার একটা কথা বলি?
মামুন: বলো।
আমি: পদ্মার চরে যে আমরা পিকনিকে গেলাম, মনে আছে?
মামুন: হ্যা, মনে আছে।
আমি: ঐখানে আমাদের সাথে একটা মেয়ে ছিল, নাম ****, সে যে গানের সাথে সাথে ডান্স করছিলো, তাও আবার হিন্দি গানের সাথে, সেইটা মনে আছে?
মামুন: হ্যা।
আমি: যখন ওর নাচ চলতেছিলো, তখন সবাই কি করতেছিলো?
মামুন: সবাই উঠে দাড়িয়ে ওর সাথে নাচতেছিলো।
আমি: আর তুমি কি করতেছিলা?
মামুন: আমি কি করছি? আমি তো কিছুই করি নাই!
আমি: আমি বলি কি করতেছিলা? ঘটনাটা কিন্তু আমার চোখ এড়ায় নাই, তুমি মুগ্ধ দৃষ্টিতে ওর ডান্স দেখতেছিলা আর ঠ্যাং দিয়া মাটির উপর তাল দিতেছিলা। আমি কি ভুল বললাম?
মামুন: এইসবের মানে কী? আর হ্যা, ওর নাচ আমি দেখতেছিলাম, বাট অতটা মুগ্ধ হয়ে না!
আমি: ওর নাচ শেষে তুমি কি করছিলা?
মামুন: কিছুই করি নাই!
আমি: ওর নাচ শেষে ওর সাথে হ্যান্ডশেক করে তুমি ওকে ত্যাল দেওয়া শুরু করলা, বললা,”আপনি যা সুন্দর ডান্স করলেন, আমি তো ভাবছিলাম আপনি কোথাও ডান্স শেখেন। কিন্তু পরে জানলাম আপনি ডান্স কোথাও শেখেন নাই। আমি ভাবতেও পারি নাই যে কেউ ডান্স না শিখেও এত্ত দারুণ ডান্স করতে পারে! একেই বোধহয় বলে গড গিফটেড ট্যালেন্ট!” এই কথাই তো তুমি বলছিলা, তাই না? আর পুরাটা সময় তুমি ওর হাত ধরে রাখছিলা, আর তারপর মেয়েটা তোমাকে থ্যাঙ্কস বলে হাতটা ছাড়িয়ে নেয়। মনে আছে?
মামুন: হ্যা। এতে কি হইছে? প্রশংসা তো এই রকম করতেই পারি।
আমি: নাহ! কিছুই হয় নাই এতে। বাদ দাও!
[মন্তব্য: ফতোয়াবাজদের জারি করা ফতোয়া শুধু আমাদের জন্য, ফতোয়াবাজদের জন্য নয়। তাই কিছুই বলার নাই!]

এ লেখার লিংক: http://projonmoblog.com/dewan-tanvir-ahmed/25966.html



মন্তব্য করুন