Dewan Tanvir Ahmed-এর ব্লগ

প্রিন্ট প্রকাশনা

যেই জামায়াত নেতারা ছেলেকে মাদরাসায় পড়াবার উপদেশ দেয়, তাদের ছেলেমেয়েরা কোথায় পড়ে???

লিখেছেন: Dewan Tanvir Ahmed

ধরা যাক, স্বল্পশিক্ষিত ব্যক্তি ফজলু মিয়ার পাঁচ ছেলে, এদের চারজন বেশ ভদ্র এবং বাধ্য সন্তান, পড়াশোনায়ও মনোযোগী। আর একজন হচ্ছে চরমতম বখাটে! চারজনকে নিয়ে তো কোনো সমস্যা নেই, কিন্তু দুশ্চিন্তা হচ্ছে পন্ঞ্চম জনকে নিয়ে। তথাকথিত আলেমদের পরামর্শে ফজলু মিয়া তার বখাটে ছেলেকে মাদরাসায় ভর্তি করায় এই আশায় যে ছেলে হয়ত একটু শুধরাবে। ব্যস, মিটে গেল! তার চার ছেলে তো বড় হয়ে ডাক্তার, ইন্ঞ্জিনিয়ার ইত্যাদি হয়ে গেল।

প্রশ্ন হচ্ছে তার বখাটে পুত্রের কি হল?? হিসাবটা খুব সোজা. . . এরকম আরো অনেক ফজলু মিয়া তাদের বখাটে সন্তানদের মাদরাসায় পাঠায় শুধরাবার আশায়। কিন্তু এক জায়গায় যখন একই প্রকৃতির ছেলেদের মিলনমেলা গড়ে ওঠে, তখন তারা তো শুধরায় না-ই, উল্টো আরো বিগড়ে যায়! এর ফলে একজন বখাটে ছেলের চরিত্রের উন্নতির পরিবর্তে আরো অবনতির দিকে হেলে পড়ে। আর মাদরাসা মূলত যাদের নির্দেশনায় চলে, তারাও এই অবস্থার পরিবর্তনের চেষ্টা করেন না। বরং তারা তো এই সুযোগের অপেক্ষায়ই থাকে।

এটাই হল কাঠমোল্লাদের ধর্মব্যবসা! বড় বড় জামায়াত নেতারা এই কারণেই ফজলু মিয়ার মত লোকদের বলে সন্তানদের মাদরাসায় পড়াতে। মাদরাসা এমন এক কারখানা যেখানে প্রথমে প্রাকৃতিকভাবে শিক্ষার্থীদের মানসিকতাকে বিকৃত হতে দেওয়া হয়, আর সেই প্রক্রিয়া যখন সম্পন্ন হয় তখন স্থায়ীভাবে তাদের মগজ ধোলাইয়ের কাজ শুরু করে কাঠমোল্লারা। এভাবেই কোমলমতি শিশুদের মগজ ধোলাই করে ধর্মব্যবসায়ীরা এদের প্রস্তুত করে নিজেদের ধর্মব্যবসার হাতিয়ার হিসেবে!!!

এই কথার ওপর যদি কারো সন্দেহ থাকে, তাহলে খোঁজ নিয়ে দেখতে পারেন, যেই জামায়াত নেতারা ছেলেকে মাদরাসায় পড়াবার উপদেশ দেয়, তাদের ছেলেমেয়েরা কই পড়ে!!!!

এ লেখার লিংক: http://projonmoblog.com/dewan-tanvir-ahmed/24443.html



মন্তব্য করুন