বি এম বেনজীর আহম্মেদ-এর ব্লগ

প্রিন্ট প্রকাশনা

পবিত্র লেবাসের ছত্রছায়ায় অদ্ভুত স্বার্থান্বেষী মানুষ!!!!!!

লিখেছেন: বি এম বেনজীর আহম্মেদ

হেফাজত ইসলামী, জামাত, আর বিএনপির ১৮ দলীয় জোটের ভিতর একটা অদ্ভুত সম্পর্ক খেয়াল করলাম।

হেফাজত এর সমাবেশ এ অনেক লোক আসে, সেটা আমরা টিভি চ্যানেল গুলায় লাইভ দেখলেই বোঝা যায়। কিন্তু প্রশ্ন হল এত লোক কথা থেকে আসে?????

hathazari

আসলে হিফাজত ইসলাম বলে কিছুই নাই, এটা একটা লেবাস মাত্র, যে লেবাসের ছত্রছায়ায় আশ্রয় নিয়েছে কিছু অদ্ভুত স্বার্থান্বেষী মানুষ। এখন প্রশ্ন আসে কারা সেই অদ্ভুত স্বার্থান্বেষী মানুষ???????

 

আমি আবার এই অদ্ভুত স্বার্থান্বেষী মানুষদের একটা শ্রেণিবিন্যাস করেছি,

 

১) ক্ষমতার লোভে নিমজ্জিত অদ্ভুত স্বার্থান্বেষী মানুষঃ এরা আর কেউ নাহ, আমাদের সবার প্রিয় বি এনপি এবং তাদের বাকি ১৭ টা দলের ঐক্যজোট। এদের স্বার্থ আমার মতে সব থেকে নোংরা। এরা ক্ষমতার লোভে দিক বিদিক শূন্য হয়ে পড়েছে। আর সেই নোংরা লালসার তাড়নায় আজ তারা বেছে নিয়েছে “লেবাস”, আমাদের দেশের মত ভোটারদের ৩১% বিএনপির ভোটার। তাদের মেরে কেটে ফেললেও আওয়ামীলীগ রে ভোট দিবেনা। সুতরাং দলের স্বার্থে তারা ও লেবাস কে আঁকড়ে ধরেছে। হিফাজত এর সমাবেশ এ পাঞ্জাবি, টুপি পরিধান করে ভিড়ে যাচ্ছে বিশিষ্ট হেফাজতি কর্মী হিসাবে। এই একই মানুষরা লেবাস টা খুলে যোগ দিচ্ছে আবার ১৮ দলীয় সমাবেশে বিএনপির কর্মী হিসাবে। এই খোলস পরিবর্তন টাই হয়েছে তাদের ক্ষমতায় যাওয়ার প্রধান হাতিয়ার। হাইরে নষ্ট রাজনীতি রে!!!!

 

২) অস্তিত্বের রক্ষায় অদ্ভুত স্বার্থান্বেষী মানুষঃ এরা হল বিশিষ্ট তৌহিদি জনতা, মানে জামাত- ছাত্রশিবির। এরা এখন সংকিত তাদের অস্তিত্ব রক্ষায়। তাদের সব নেতারা এখন জেল এ, যুদ্ধাপরাধের দায়ে এক এক করে ফাঁসির রায়ে অধ্যুষিত হচ্ছে। সুতরাং তারাও এক কথায় দিক বিদিক শূন্য হয়ে পড়েছে। কিন্তু সুবিধা তাদের একটাই, বিএনপির মত তাদের আর লেবাস পরিবর্তন করা লাগেনাই। সরাসরি এসে ভিড়েছে হেফজতের কেবলায়, হয়েছে নতুন ইসলাম এর হিফাজত কারি।

 

৩) ঝোঁক বুঝে কোপ মারার স্বার্থে লালায়িত কিছু টিকটিকি সম্প্রদায়ঃ এরা হল স্বয়ং হিফাজতি গ্রুপ। এরা অনেক দিন থেকেই গো মেরে বসে ছিল, বিভিন্ন সময়ে এসেছে বিভিন্ন নাম নিয়ে, তাদের একটায় লক্ষ ছিল তাহলো বাংলাদেশ কে তালেবান পন্থি দেশ হিসাবে প্রতিষ্ঠা করা। ঠিক ব্যাট এ বলে হচ্ছিল না এতদিন। সুযোগ করে দিল বি এনপি ও জামাত শিবির। তারাও এই সুযোগ টা লুফে নিল মহানন্দে। শুরু করলো তাদের এজেনডা। পেশ করলো ১৩ দফা, যা এতদিন সিন্দুকে রাখা ছিল।

এখন আসি একটু ভিন্ন প্রসঙ্গে, এই যে বিএনপি, জামাত আর হিফাজতি দলগুলোর ভিতর কারা সব থেকে শক্তিধর??? এক কথায় বিএনপি জামাত। তারা তাদের স্বার্থে ব্যবহার করছে হিফাজতিদের। সুতরাং একটা বিষয়ে মোটামুটি এক মত হওয়া যাই তাহলো, আসলে হিফাজতির ১৩ দফা বলে কিছু নাই, তাদের আসলে একটায় দাবি, যুদ্ধাপরাধীদের মুক্তি!!!!!!!!!!! আমি জোর গলায় বলতে পারি, আজ সরকার যদি এই যুদ্ধাপরাধীদের মুক্তি দেয়, ঠিক সেই মুহূর্তে থেমে যাবে সব তথাকথিত ইসলাম এর নষ্ট আস্ফালন!!!!

 

 ”পবিত্র লেবাস আজ কিছু নষ্ট মানুষের নষ্ট স্বার্থে জর্জরিত!!!!!”

এ লেখার লিংক: http://projonmoblog.com/bm_banjir/12545.html

 2 টি মন্তব্য

  1. wattickrom

    সহমত

    1. বি এম বেনজীর আহম্মেদ

      wattickrom সহমত পোষণ করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ । 

মন্তব্য করুন