আতিকুর রহমান আতিক-এর ব্লগ

প্রিন্ট প্রকাশনা

চিলমারী, রৌমারী ও রাজিবপুরের অভিশাপ

লিখেছেন: আতিকুর রহমান আতিক

পানি বাড়ার সাথে সাথে ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙন আরো তীব্র আকার ধারণ করেছে। ব্রহ্মপুত্রের করাল গ্রাসে মানচিত্র থেকে দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে জেলার ঐতিহ্যবাহি উপজেলা চিলমারীর বিস্তীর্ণ জনপদ। ভাঙছে নদী উজাড় হয়ে যাচ্ছে গ্রামের পর গ্রাম।
হুমকির মুখে ব্রহ্মপুত্র ডানতীর রক্ষা প্রকল্প ! নদী ভাঙনের ফলে প্রতিদিন ঘরবাড়ী জমাজমি হারিয়ে হচ্ছে নিঃস্ব। নদীভাঙনের শিকার পরিবারগুলো কেউ অন্যের জমিতে, কেউ বাঁধের রাস্তায়, কেউ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কোনো রকমে মাথা গোজার ঠাঁই নিয়ে মানবতের জীবন যাপন করেছে। ব্রহ্মপুত্র নদী ভয়ঙ্কর রুপ ধারণ করেছে। পানি বাড়ার সাথে সাথে গত কয়েকদিনে নদী ভাঙনের শিকার হয়েছে কয়েক’শ পরিবার, অসংখ্যা গাছপালা, কয়েক একর ফসলী জমি। নদী ভাঙ্গনের শিকার মানুষগুলো বহুকষ্টে দিনাতিপাত করছে।
প্রায় ৩কিঃমিঃ জুড়ে চলছে এই ভাঙনের তান্ডবলীলা। ভাঙ্গছে অবিরাম।
শুধু চিলমারী নয়, চিলমারীর মত ব্রহ্মপুত্র নদীর তীড় জুড়ে বসবাস করা রৌমারী ও রাজিবপুরের হাজারো মানুষের অসহায় কান্নায় বাতাস ভারি হয়ে উঠেছে । এতে করে পরিবারগুলো গৃহহীন হয়ে পড়েছে। নদী ভাঙন যে রূপ নিয়েছে তা ঠেকাতে না পারলে ওয়াবদা বাঁধ, ব্রহ্মপুত্র ডানতীর রক্ষা প্রকল্পসহ চিলমারী সদর উপজেলা রাজিবপুর ও রৌমারী উপজেলা নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাবে। হয়তো একদিন বাংলাদেশের মানচিত্র থেকে চিলমারী, রৌমারী ও রাজিবপুর হারিয়ে যাবে!

এ লেখার লিংক: http://projonmoblog.com/ar-atique/18197.html