আলী হোসেন বিদ্যুৎ-এর ব্লগ

প্রিন্ট প্রকাশনা

রসগোল্লার ছিদ্র!

লিখেছেন: আলী হোসেন বিদ্যুৎ

422106_379721955475067_542702010_n“ব্লগার সব নাস্তিক”এই কথা শুনতে শুনতে কানে খিল ধরে গেছে।এই বিষয়ে আমার কিছু প্রশ্ন-৭১এ কিছু রাজনৈতিক নেতা(জামাত) রাজাকার হয়েছে-তাই সকল রাজনৈতিক নেতাই কি রাজাকার? দাড়ি টুপওয়ালাদের মধ্য কয়েক জন শিবির।-তার মানে কি সব দাড়ি টুপিওয়ালারা শিবির?ব্যবসায়ীদের মধ্য কিছু আছে অসধু ,তাই ব্যবসায়ি সব অসধু?শহরে কিছু ছিনতাইকারী আছে বলেই,শহুরে সব ছিনতাইকারী?এবার একটু বড় পরিসরে আসি,কিছু নারী পতিতা,তাই সব নারীই পতিতা?কিছু মানুষ খুনি তাই মানুষ খুনি?
যদি বলেন এগুলো কি করে অম্ভব?কেন ব্লগারদের যেভাবে নাস্তিক হওয়া সম্ভব?

হেফাজাতীরা যে জামাতের দালাল,এবার তার প্রমাণ- শাহাবাগে আল্লাহ্‌ এবং তার নবী(সঃ)কে কেউ কি কটুক্তি করেছে?আমি জানি দেশের প্রায় সরগুলো টেলিভিশন ও সংবাদপ্ত্র সারাক্ষণ সরাসরি শাহাবাগ থেকে সম্প্রচার করেছে,কেন স্লগানে কি কেউ রাজাকারদের ছাড়া কাউকে কটুক্তি করেছে?কেন সাংবাদিক ভাইয়ের কাছে এমন প্রমাণ থাকলে দয়াকরে প্রকাশ করবেন।তাহলে শাহাবাগের প্রতি ওনাদের এত বিষদ্গার কেন?নতুন জাতিই তৈরী করেনিছেন শাহাবাগী ব্লগার নাস্তিক!ফটিকছরিতে জামাতের সাথে মিলে হেফাজাত যা করেছে তাতে আর প্রমাণ লাগে না ওনারা কাদের হেফাজত করছেন।এছাড়া,শাহাবাগের মঞ্চের প্রতি আক্রমন করতে যাওয়া,মহাখালির জাগরণ মঞ্চে আক্রমণ,সাংবাদিক নাদিয়া শারমিনকে আক্রমণ।শাহাবাগের কেউ তো কাউকে আক্রমণ করেনি।এতে কি প্রমাণ হয় না শাহাবাগ অন্দলনের ফলে যাদের ক্ষতি হয়েছে তাদের হেফাজতের জন্যই আপনারা মাঠে নেমেছেন? ওনাদের তো ধর্ম দ্রহিদের আক্রমণ করার কথা?শাহাবাগের প্রতি না।
ব্লগারদের মধ্য যদি কেউ নাস্তিক এবং ধর্মদ্রহিতার কাজ করেন বলে কারো কাছে প্রমাণ থাকে,তবে, দয়া করে তাদের নাম করে বলুন,আমরা ও তাদের বিচার চাই ।
আমারদেশ পত্রিকায় যে কাবা শরীফ নিয়ে মিথ্য লিখেছ,ওনারা সেই মাহামুদুরের মুক্তি চাচ্ছেন।ওনাদের মাইক থেকে মানুষ খুনের আহবান জনান হয়।সাঈদীর মুক্তির প্লেকার্ড প্রদর্শণ করা হয়।তবু ওনারা হেফাজতে ইসলাম?

ভেবেছিলাম লিখব না,না লিখে কি থাকা যায়?আমার দেশে যে অনেক গুলো ক্ষমতা লোভী দুই পা ওয়ালা জানোয়ার জন্মেছে।ক্ষমতার জন্য তারা মাকেও অন্য লোকের ঘরে পাঠাতে দ্বিধা করে না।সাদেক খোকার কথাগুলো কি বাচ্চাদের মত,না ছেলে ভূলানোর মত?আগেই এক লেখায় বলেছিলাম ওনারা দেশের মানুষকে শিশু মনে করে,কারণ ওনারাই যে আজন্ম শিশু।

এবার আন্দালিব সাহেবের কথায় আসি,ওনার মত হচ্ছে” ব্লগারদের সব কান ধরে বসায় রাখা দরকার ছিলো ।”আমার মনে হয় এই রাম ছাগল ব্লগ সম্পর্কে জানে না,না হয় ম্যাডামের কাছ থেকে শিখেছে অথবা উনিও জনগনকে খোকা মনেকরেন।সমস্যা হচ্ছে কেন যে এই ঞ্জানপাপীদেরকে
গণমধ্যমে ডাকা হয়?ওদেরতো রাস্তায় যৌন রোগের ওষুধ বেঁচতে পাঠানো উচিত।”প্রথম রাতেই প্রমান!”যত সব ময়লা আর্বজনা এসে বাঙ্গালীর
ও বাংলাদেশীদের ঘারে চাপে।এই লোকটাকে রাজনীতিতে দেখে আশান্বিত হয়েছলাম।ভেবেছিলাম,তরুণ প্রজন্মের এক জন শিক্ষিত রাজনৈতিক নেতা পেলাম।মনে মনে ভালো লাগতেও লাগছিল।শেষে দেখি এই অপদার্থটাও একটা ক্ষমতা লোভী মূর্খ মহিলার পোষা ককিল।

কিছু লোক আছে যাদের স্বভাবই হচ্ছে উকিঝুকি মারা।ভালো খাবার দিলেও বলে লবণ হয়নি,মিষ্টি হয়নি,সিদ্ধ হয়নি,আরো কত কি?
ভাল কাজে গেলেও ওনাদের চোখ টাটায়।রাজাকারের ফাঁসি চাইলে নাস্তিক!ব্লগে লিখলে দু-এক জন কুলাঙ্গারের জন্য সবাই নাস্তিক।ওনাদের ছেলে-মেয়েরা যে দরজা বন্ধ করে পর্ণগ্রাফি দেখ,তার খবর রাখেন?কয়েক জন ব্লগারকে প্রমাণ হওয়ার পর নাস্তিক বলতে পারেন কিন্তু সকলকে না।

আমি শাহাবাগ প্রজন্ম চত্তরে পড়ি!-আমি কোথায় পড়ি এই প্রশ্নের জবাবে বলেছিলাম।” আমি শাহাবাগ থেকে অনেক শিখেছি,আমি শিখেছি অহিংসা,দেশ প্রেম,মানব প্রেম,সততা,সত্যবাদিতা,সাহিত্য,ইতিহাস,রাজনীতি,সমাজ সচেতনতা,জীবন বোধ,সমতা,নিরহংকারিতা,কাব্য সহনশীলতা,ভ্রাতিত্য………..

প্লিজ,রসগোল্লার মধ্যে ছিদ্র খুজবেন না!

এ লেখার লিংক: http://projonmoblog.com/ali-hossain-bidyut/10560.html



মন্তব্য করুন