A LIBRARY OF RURAL DEVELOPMENT-এর ব্লগ

প্রিন্ট প্রকাশনা

আমাদের এই খালটি বাঁচাতে হবে ।

লিখেছেন: A LIBRARY OF RURAL DEVELOPMENT

নদী মাতৃক এই বাংলাদেশের প্রত্যেকটি জেলায়, থানায়, প্রতন্ত অঞ্চলে যে সভ্যতাগুলো গড়ে উঠেছে তার প্রত্যেকটিই কোন না কোন নদীর তীর ঘেষে বা শাখা নদী, উপনদীর সংস্পর্শে । যোগাযোগ থেকে শুরু করে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় এই প্রাকৃতিক জলাশয়গুলো বড় একটি ভূমিকা পালন করে আসছে প্রাচীন কাল থেকে । ঢাকার অদূরে গাজীপুরের শ্রীপুর নানা কারনেই বাংলাদেশের মধ্যে এখন একটি উল্লেখযোগ্য উপজেলা ।এই উপজেলার সভ্যতাও গড়ে উঠেছে বর্মীর শীতলক্ষা নদীর তীর ঘেষে ।এই একটি নদী ছাড়া আর নদী না থাকলেও অনেকগুলো বড় বড় খাল এই শ্রীপুরের সৌন্দর্য বর্ধনে, ফসলের প্রাচুর্য সৃষ্টিতে এবং প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষায় বড় ভূমিকা পালন করে আসছে ।তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য একটি খাল হল লবলং সাগর নামে পরিচিত মাওনা বাজারের পশ্চিমে অবস্থিত বৃহৎ এই খালটি । এই খালটি দেখতে হলে মাওনা চৌরাস্তা হতে সোজা পশ্চিমে দুই কিলোমিটার গেলেই পৌছে যাওয়া যাবে । এখনও সবুজে আবৃত এই খালটি বিভিন্ন ফ্যাক্টরির দুষিত পানি দ্বারা মারাত্বকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে । এই খালে বর্তমানে যতটুকু পানি প্রবাহিত হয় তার সবটুকুই প্রায় এসিডিয় প্রকৃতির ।তার কারন একটি এসিড ফ্যকটরীর বর্জ্য এবং কয়েকটি ডাইং ফ্যাকটরীর বর্জ এই খালে গিয়ে সরাসরি পড়ে । তাছাড়াও রাতে এই খালে এনে একটি রাসায়নিক ফ্যাকটরীর উৎপাদিত হাইড্রোক্লোরিক এসিড ফেলা হয় । এতে করে এই খালের পানিতে pH এর পরিমান ৩ এর নীচে এবং DO ( ডিসলভ্ অক্সিজেন) এরপরিমানও আশংকাজনক হারে কমে গেছে । pH এর সঠিক মাত্রা ৬-৭ এর মধ্যে হলেও ৩ এর নীচে চলে যাওয়ায় যেকোন প্রানীর জন্য পানি পান অযোগ্য হয়ে গেছে । শুধু তাই নয় এই খালের আশেপাশের মাটিগুলোও তার ক্ষরকত্ব হারাচ্ছে । নতুন করে শুরু হয়েছে মাওনা- কালিয়াকৈর সড়কে এই খালের উপর ব্রীজের পাড়ে পৌড়সভার ময়লা, আবর্জনা ফেলা ।ময়লা আবর্জনার দুর্গন্ধে দুষিত হচ্ছে এলাকার বাতাস ।

ভবিষ্যতে যা হতে পারে :

বিভিন্ন শাখা নদীর মাধ্যমে তুরাগ নদীদে গিয়ে পড়ছে এই পানি । যার ফলে নদীর পানি সহজেই দুষিত হচ্ছে ।

একসময় এই খালের চারপাশের জমিগুলোর ধান দুষিত হবে যাতে করে মানব স্বাস্থ্যের উপর বিরূপ প্রভাব পড়বে ।

এসিডিয় পানিগুলো মাটির নীচে যেয়ে যেয়ে ভূগর্ভস্থ্য পানি দুষিত করবে ।

ময়লা ফেলে খাল ভরাট করে ফেললে এলাকায় বন্যা দেখা দেবে ।

আমাদের করনীয় :

যতদ্রুত সম্ভব যে যে ফ্যাক্টরীর পানি এখানে এসে পড়ছে তাদের পানি পরিশোধনাগারের মাধ্যমে পরিশোধন করে খালে সেই পানি ফেলা ।

পৌনসভার ময়লা ফেলা বন্ধ করা ।

পরিবেশ অধিদপ্তরের তদারকি বাড়ানো এবং নির্দিষ্ট সময় অন্ত অন্তর লক্ষ রাখা ।

এই খালটিকে দুষিত অবস্থা থেকে বাঁচাতেই হবে । আমি পরিবেশ অধিদপ্তর সহ সংশ্লিষ্ট সকল কতৃপক্ষের কাছে আকুল আবেদন জানাই আপনারা এই খালটি রক্ষায় ব্যবস্থা গ্রহন করুন ।

এ লেখার লিংক: http://projonmoblog.com/a-library-of-rural-development/25336.html



মন্তব্য করুন